মেনু নির্বাচন করুন

দর্শনীয় স্থান

ক্রমিক নাম কিভাবে যাওয়া যায় অবস্থান
ফয়েজ লেক উক্ত দশর্নীয় স্থানে যাওয়ার জন্য বাস বা অটোরিক্সা ব্যবহার করা যেতে পারে। ফয়ে’স লেক পাহারতলী রেলওয়ে স্টেশনের পূবে ও খুলশী আবাসিক এলাকার পশ্চিমে অবস্থিত।
জাতিতাত্ত্বিক যাদুঘর(চট্রগ্রাম) উক্ত দশর্নীয় স্থানে যাওয়ার জন্য বাস বা অটোরিক্সা ব্যবহার করা যেতে পারে। বাংলাদেশের চট্টগ্রাম শহরের আগ্রাবাদ বাণিজ্যিক এলাকায় অবস্থিত ।
চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানা উক্ত দশর্নীয় স্থানে যাওয়ার জন্য বাস বা অটোরিক্সা ব্যবহার করা যেতে পারে। এটি ফয়ে’স লেক এর বিপরীত পাশে অবস্থিত।
পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত উক্ত দশর্নীয় স্থানে যাওয়ার জন্য বাস বা অটোরিক্সা ব্যবহার করা যেতে পারে। চট্টগ্রাম
চট্টগ্রাম ওয়ার সিমেট্রি উক্ত দশর্নীয় স্থানে যাওয়ার জন্য বাস বা অটোরিক্সা ব্যবহার করা যেতে পারে। চট্টগ্রাম
বাটালী হিল উক্ত দশর্নীয় স্থানে যাওয়ার জন্য বাস বা অটোরিক্সা ব্যবহার করা যেতে পারে। চট্টগ্রাম
কোর্ট বিল্ডিং উক্ত দশর্নীয় স্থানে যাওয়ার জন্য অটোরিক্সা ব্যবহার করা যেতে পারে। লালদীঘি এলাকায় পরীর পাহাড়ে আছে ঐতিহাসিক কোর্ট বিল্ডিং। আঁকা বাঁকা পাহাড়ি পথ ভেঙ্গে উপরে উঠলেই দেখতে পাবেন প্রাচীন এই ভবনটি।এই ভবনটিতে বিভাগীয় কমিশনার এবং জেলা প্রশাসকের কার্যালয় অবস্থিত।
বায়েজিদ বোস্তামী উক্ত দশর্নীয় স্থানে যাওয়ার জন্য বাস বা অটোরিক্সা ব্যবহার করা যেতে পারে। চট্টগ্রাম
ভাটিয়ারী চট্টগ্রাম শহর থেকে মাত্র ১৫ কিমি দূরেই সীতাকুন্ড উপজেলায় ভাটিয়ারী গলফ এ্যান্ড কান্ট্রি ক্লাবটি অবস্থিত। ভাটিয়ারী-হাটহাজারী সড়কে মিনিটখানেক গাড়ি এগুলেই পৌছে যাওয়া যায় গলফ ক্লাবে। চট্টগ্রাম
১০ লালদীঘি উক্ত দশর্নীয় স্থানে যাওয়ার জন্য বাস বা অটোরিক্সা ব্যবহার করা যেতে পারে। চট্টগ্রাম
১১ বায়তুল ইজ্জত কেরানীরহাট থেকে বাস বা সিএনজি যোগে বায়তুল ইজ্জত বর্ডার গার্ড ট্রেনিং সেন্টারে আসা যায়। কেওচিয়া ইউনিয়ন, সাতকানিয়া উপজেলা, চট্টগ্রাম জেলা
১২ নানুপুর বেৌদ্ধ বিহার নানুপুর,ফটিকছড়ি,চট্টগ্রাম।
১৩ মেধসমুনি আশ্রম চট্টগ্রাম বহদ্দরহাট বাস টার্মিনাল হতে বাস যোগে অথবা সিএনজি টেম্পো যোগে সরাসরি উপজেলা পরিষদ হয়ে কানুনগোপাড়া কালাইয়ার হাট এর বাম পাশদিয়ে কিছুদুর পর করলডেঙ্গা পাহাড়ের চুড়ায় অবস্থি মেধসমুনি আশ্রম। বোয়ালখালী উপজেলার আমুচিয়া ইউনিয়নে পাহাড়ের উপর অবস্থিত।
১৪ মন্দাকিনি শিব মন্দির চট্টগ্রাম শহর হতে প্রায় ২২ কিলোমিটার। চট্টগ্রাম শহর হতে অক্সিজেন বাসষ্ট্যান্ড থেকে নাজিরহাট-খাগড়াছড়ি বাসযোগে নুরালি মিয়া হাট নেমে পশ্চিমে কাহারপাড়া গ্রামের মধ্য দিয়েই মন্দাকিনি শিব মন্দিরে যাওয়া যায়। কাহারপাড়া, ফরহাদাবাদ
১৫ হালদা নদী উক্ত দশর্নীয় স্থানে যাওয়ার জন্য বাস বা অটোরিক্সা ব্যবহার করা যেতে পারে। সাত্তারঘাট
১৬ চা বাগান চট্টগ্রাম হতে বাসযোগে কাঞ্চনাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ নেমে সিএনজি/রিকশাযোগে অত্র চা বাগানে আসা যায়। কাঞ্চনাবাদ ইউনিয়ন,চন্দনাইশ
১৭ বাঁশখালী ইকোপার্ক চট্টগ্রাম থেকে সড়কপথে ৪৭ কিঃমিঃ দক্ষিণে শিলকূপ অতঃপর সড়কপথে ৪কিঃমিঃ পূর্বে বাঁশখালী উপজেলার শীলকূপ ইউনিয়নের পূর্বাংশে পাহাড়ী এলাকায়
১৮ বেলগাঁও চা বাগান চট্টগ্রাম থেকে সড়কপথে ২৩কিঃমিঃ দক্ষিণে চানপুর বাজার অতঃপর ৫কিঃমিঃ পর্বে পুকুরিয়া ইউনিয়নের পূর্বাংশের পাহাড়ী এলাকায়
১৯ বাহারছড়া সমুদ্র সৈকত চট্টগ্রাম হতে সড়কপথে ৩২কিঃমিঃ দক্ষিণে কালীপুর অতঃপর ৬ কিঃমিঃ পশ্চিমে বাহারছড়া ইউনিয়নের পশ্চিমাংশে
২০ ঠাকুর দিঘী চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের কেরানীহাট থেকে প্রায় ৪ কিলোমিটার দক্ষিণে সড়ক সংলগ্ন পশ্চিম পাশে। যাতায়তের মাধ্যম- ব্যক্তিগত গাড়িযোগে, টেক্সি, অটো রিক্সা, বাসযোগে। পদুয়া বাজারের উত্তর পাশে

সর্বমোট তথ্য: ৩৬