মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

স্থানীয় এলাকা পরিচিতি

প্রথম অধ্যায়: স্থানীয় এলাকা পরিচিতি

 

১.১পটভূমি

 

দূর্যোগের স্থায়ী আদেশাবলীতে ঝুঁকিহ্রাস ও কন্টিনজেন্সী পরিকল্পনাকে অন্তর্ভূক্ত করে জেলা , উপজেলা, পৌরসভার ও সিটি কর্পোরেশন পর্যায়ে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মপরিকল্পনা প্রনয়ণের সুপারিশ করা হয়েছে। দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনা বিষয়টি সিডিএমপি খুবই গুরুত্বের সাথে নিয়েছে। পরিকল্পনার স্থায়ীত্বশীলতা ও কার্যকারীতার, নিবিড় এবং ফলাফলধর্মী কর্মপদ্ধতি সংশ্লিষ্ট সংগঠন, প্রতিষ্ঠানের ও জনগোষ্ঠীর অংশগ্রহণের উপর নির্ভরশীল। দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনাটি ৩ বছরের জন্য প্রনয়ণ করা হয়েছে।

 

বাংলাদেশ বিশ্বের মানচিত্রে অন্যতম একটি দূর্যোগ প্রবন দেশ। এদেশের প্রতিটি জেলাই কম বেশী দূর্যোগে আক্রান্ত হয়। এ জেলাগুলোর মধ্যে চট্টগ্রাম জেলা অন্যতম। চট্টগ্রাম জেলা একটি  অত্যন্ত দূর্যোগ ঝুঁকি প্রবন এলাকা। ঝড়, জলোচ্ছ্বাস ,  বন্যা, নদী ভাঙ্গন ও পাহাড়ী ঢল এই এলাকার প্রধান দূর্যোগ। বাংলাদেশের প্রতিটি অঞ্চলে প্রতি বছর দূর্যোগ হয় এবং জন সাধারনের জীবন ও জীবিকার উপর বিরুপ প্রভাব ফেলে। প্রতি বছর বিভিন্ন দূর্যোগে পতিত হলেও জেলা/উপজেলা পর্যায়ে কোন কর্মপরিকল্পনার প্রতিফলন দেখা যায়নি। সার্বিক দূর্যোগ ব্যবস্থাপনার অংশ হিসেবে এই দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনাটি চট্টগ্রাম জেলার জন্য প্রনয়ণ করা হয়েছে।

 

১.২ পরিকল্পনার মূল উদ্দেশ্য

 

§        পরিবার ও সমাজ পর্যায়ে দূর্যোগের ঝুঁকি সম্পর্কে গণসচেতনতা সৃষ্টি ও সকল প্রকার ঝুঁকি হ্রাস করনে পরিবার, সমাজ, ইউনিয়ন প্রশাসন, উপজেলা ও জেলা প্রশাসন পর্যায়ে বাস্তবসম্মত উপায় উদ্ভাবন করা।

§        স্থানীয় উদ্যোগে যথাসম্ভব স্থানীয় সম্পদ ব্যবহারের মাধ্যমে ঝুঁকি হ্রাসকরণ ও ব্যবস্থাদি ও বাস্তবায়ন পদ্ধতির উন্নয়ন সাধন।

§        অপসারন, উদ্ধার, চাহিদা নিরুপন ত্রাণ ও তাৎক্ষনিক পূর্ণবাসন ব্যবস্থার জন্য  স্থানীয়ভাবে প্রণীত পরিকল্পনার অনুশীলন ও প্রয়োগ।

§        একটি নির্দিষ্ট এলাকা এবং নির্দিষ্ট সময়ের জন্য কৌশলগত দলিল তৈরী করা।

§        দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি ও সংশ্লিষ্ট সেক্টরের (সরকারী, আন্তর্জাতিক, জাতীয় এনজিও, দাতা ইত্যাদি) জন্য একটি সার্বিক পরিকল্পনা হিসেবে কাজ করবে।

§        দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংশ্লিষ্ট  অংশীদারদের পরিকল্পনা প্রনয়ণে ও বাস্তবায়নে নির্দেশনা প্রদান করে।

§        সংশ্লিষ্ট কমিউনিটির দূর্যোগ পরিকল্পনায় আন্তরিক অংশগ্রহণ, কার্যকর অংশীদারত্ব ও মালিকানাবোধ জাগ্রত করা

 

১.৩ স্থানীয় এলাকা পরিচিতি

 

১.৩.১. জেলার ভৌগলিক অবস্থান:

 

উত্তরে ফেনী ও ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য, দক্ষিণে কক্সবাজার জেলা, পূর্বে বান্দরবন, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি এবং পশ্চিমে নোয়াখালী জেলা ও বঙ্গোপসাগর অবস্থিত।

 

ভৌগোলিক অবস্থান :

 

চট্টগ্রাম জেলাটি চট্টগ্রাম বিভাগে অবস্থিত। বাংলাদেশের দক্ষিণপূর্বে ২০০৩৫ থেকে ২২০৫৯ উত্তরঅক্ষাংশ এবং ৯১০২৭ থেকে ৯২০২২ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ বরাবর এর অবস্থান।

 

ভৌগোলিক সীমানা :

 

উত্তরে খাগড়াছড়ি ও রাঙ্গামাটি এবং ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য, দক্ষিণে কক্সবাজার জেলা, পূর্বে বান্দরবন, রাঙ্গামাটি এবং খাগড়াছড়ি, পশ্চিমে নোয়াখালী জেলা ও বঙ্গোপসাগর। পাহাড়, নদী, সমূদ্র, অরণ্য, উপত্যকা প্রভৃতি প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্যের জন্যে এ জেলা অন্যান্য জেলা থেকে স্বতন্ত্র।

 

চট্টগ্রাম জেলার আয়তন ৫,২৮২.৯২ বর্গ কিমি। বার্ষিক গড় তাপমাত্রা ৩৩.৮ সে.এবং সর্বনিন্ম ১৪.৫সে. । বার্ষিক বৃষ্টিপাত ৩,১৯৪ মিমি। প্রধান নদীঃ  কর্ণফুলী, হালদা ও সাঙ্গু । মোট লোকসংখ্যা ৫৬,২৩,৯১৩ জন (আদমশুমারী ২০১১ এর তথ্য অনুযায়ী)। লোকসংখ্যা (চট্টগ্রাম মহানগর)ঃ ৩২,০২,০০০ জন । লোকসংখ্যার ঘনত্বঃ ১,৪৯৭ জন প্রতি বর্গ কিঃ মিঃ। শিক্ষিতের হারঃ  ৫৮.৯%, পুরুষঃ ৬১.১%,  মহিলাঃ  ৫৬.৭% ।

·   উপজেলাঃ  ১৪টি - মীরসরাই, সীতাকুন্ড, সন্দ্বীপ, রাউজান, রাঙগুনিয়া, ফটিকছড়ি, হাটহাজারী, পটিয়া, আনোয়ারা, চন্দনাইশ, বোয়ালখালী, বাঁশখালী, লোহাগাড়া, সাতকানিয়া।

·   থানাঃ উপজেলা পর্যায়ে- ১৫টি-মীরসরাই, সীতাকুন্ড, সন্দ্বীপ, রাউজান, রাঙগুনিয়া, ফটিকছড়ি, ভুজপুর, হাটহাজারী, পটিয়া, আনোয়ারা, চন্দনাইশ, বোয়ালখালী, বাঁশখালী, লোহাগাড়া, সাতকানিয়া এবং মহানগরঃ   ১২টি- বাকলিয়া, বায়োজিত, পাহাড়তলী, পাঁচলাইশ, পতেঙ্গা, চান্দগাঁও, বন্দর, ডবলমুরিং, হালিশহর, কর্ণফুলী, খুলশী, কতোয়ালী।

·   সংসদ নির্বাচনী এলাকাঃ ১৬টি।

·   সমুদ্র উপকূলবর্তী উপজেলাঃ ৫টিঃ মীরেরস্বরাই , সীতাকুন্ড, আনোয়ারা, বাঁশখালী, সন্দ্বীপ।

·   পৌরসভা- ১৩টিঃ মীরেরস্বরাই , বারইয়ারহাট, সীতাকুন্ড, সন্দ্বীপ, রাউজান, রাঙ্গনিয়া, পটিয়া, বাঁশখালী, সাতকানিয়া, চন্দনাইশ, ফটিকছড়ি, হাটহাজারী, বোয়ালখালী।

·   ইউনিয়নঃ ১৯২টি, গ্রামঃ ১,২৬৭টি, মৌজাঃ ৮৯০টি ।

·   নদীঃ ৩ টি (কর্ণফূলী, হালদা, সাঙ্গু)।

·   মোট জমির পরিমাণঃ ১৩,০৫,৪৪৬ একর, আবাদী জমির পরিমাণঃ ৫,৮৮,০৭৯ একর, কৃষি জমির পরিমাণঃ ১,১২,৩১৪.৫৭ একর, কৃষি খাস জমির পরিমাণঃ ৪৪,৩৫০.৫৩৫ একর, অকৃষি খাস জমির পরিমাণঃ ৯১,২০৮.৯৪৬ একর।

·   সিটিকর্পোরেশনঃ – ১, সিটিকর্পোরেশন বা মহানগরের আয়তনঃ - ১৮৪.০৭ ও ওয়ার্ড সংখ্যাঃ - ৮১

 

আয়তনঃ চট্টগ্রাম জেলার আয়তন ৫,২৮২.৯৮ বর্গ কিমি

 

ভূ-প্রাকৃতিক অবস্থা ঃ

 

মাটি ঃ  দোঁয়াশ মাটি, বেলে মাটি, বেলে দোঁয়াশ মাটি এবং কিছু কিছু কর্দমাক্ত মাটি।

 

পানি ঃ উপকূলীয় এলাকার পানি লবনাক্ত এবং অন্য এলাকার পানি স্বাভাবিক।

 

বনাঞ্চল ঃ ৩৪৫৬৪ হেক্টর বনভূমি আছে। উপকূলীয় বনভূমি আছে ৭২,২৩৮.৭০ একর।

 

চট্টগ্রাম জেলার উপজেলাগুলোর আয়তনঃ

 

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

আয়তন

(বর্গ কিঃমিঃ)

স্থলভাগ

(বর্গ কিঃমিঃ)

বণাঞ্চল

(বর্গ কিঃমিঃ)

জলাভূমি

(বর্গ কিঃমিঃ)

আনোয়ারা 

১৬৪.১

১৪৮.৯০

৯.১১

৬.০৯

বাশখালী

৩৭৬.৯

২৮৫.৬৩

৭৯.৩৩

১১.৯৪

বোয়ালখালী 

১২৬.৪৬

৮৩.৯৬

৩৬.৭২

৫.৭৮

চন্দনাইশ

২০১.৯৯

১৪৭.৪৭

৫৪.৫২

চট্টগ্রাম মহানগরী

৩০৪.৫৪

৩০১.৮৯

২.৬৫

ফটিক ছড়ি

৭৭৩.৫৪

৪৭২.৮২

৩০০.৭২

হাটহাজারী

২৪৬.৩২

২০৯.৯৯

৩২.৫২

৩.৮১

লোহাগাড়া

২৫৮.৮৭

১৮২.৯৫

৭৫.৯২

মীরেরস্বরাই  

৪৮২.৮৮

২৯০.০২

১৩৩.১৪

৫৯.৭২

১০

পটিয়া

২১১.৮৫

১০১.১০

৯৯.৩৮

১১.৩৭

১১

রাংগুনিয়া

৩৬১.৫৩

২৪৮.১৭

১০৬.৪৭

৬.৮৯

১২

রাউজান

২৪৬.৫৯

২২৬.৫১

১৭.৭৫

২.৩৩

১৩

সন্দ্বীপ  

৭৬২.৪২

৩১৭.৭৪

১০.১৩

৪৩৪.৫৫

১৪

সাতকানিয়া

২৮০.৯৭

২২০.৯৩

৫২.৫৩

৭.৫১

১৫

সীতাকুন্ড

৪৮৩.৯৬

৩৮২.৮৭

১০১.০৯

 

মোট

৫২৮২.৯২

৩৬২০.৯৫

১১১১.৯৮

৫৪৯.৯৯

সূত্রঃ জেলা পরিসংখ্যান ২০১১

 

১.৩.২ আয়তন 

 

জেলার আয়তনঃ ৫,২৮২.৯৮ বর্গ কিমি

 

জেলার অর্ন্তগত উপজেলা / ইউনিয়ন / মৌজা সমূহের সংক্ষিপ্ত বর্ননাঃ

 

উপজেলা

ইউনিয়নের নাম

মৌজার সংখ্যা

রাঙ্গুনিয়া

 রাজানগর, দ. রাজানগর, পারুয়া, পোমরা, বেতাগী, সরফভাটা, শিলক, কোদালা, পদুয়া, মরিয়মনগর, লালানগর, চন্দ্রঘোনা, ইসলামপুর, স্বনির্ভররাঙগুনিয়া, হোসনাবাদ

৭৩

 

 

 

সীতাকুন্ড

সৈয়দপুর, বারৈয়াঢালা, মুরাদপুর, বাড়বকুন্ড, ঊাঁশবাড়িয়া, কুমিরা, সোনাইছড়ি, ভাটিয়ারী, সলিমপুর

৬৯

 

 

 

মীরসরাই

করেরহাট, হিংগুলী, জোরারগঞ্জ, ধুম ওচমানপুর, ইছাখালী, কাটাছরা, দূর্গাপুর, মীরসরাই, মিঠানালা, মঘাদিয়া, খৈয়াছড়া, মায়ানি, হাইতকান্দি, ওয়াহেদপুর, সাহেরখালী

১১৩

 

 

 

পটিয়া

চরলক্ষ্যা, জুলধা, চরপাথরঘাটা, বড়উঠান, শিকলবাহা, কোলাগাঁও হাবিলাসদ্বীপ, কুসুমপুরা, জিরি, আশিয়া, জংগলখাইন, কাশিয়াইশ, ঊড়লিয়া, ধলঘাট, দক্ষিণ ভূষি, হাইদ কেলিশহর, খরনা, ভাটিখাইন, শোভনদন্ডী, ছনহরা

১০২

 

 

 

সন্দ্বীপ

গাছুয়া, সমেত্মাষপুর, র্দীঘাপাড়, কালাপানিয়া, হরিশপুর, বাউরিয়া, মুছাপুর, রহমতপুর, আজিমপুর, মাইটভাঙ্গা, সারিকাউত, মগধরা, হারামিয়া, আমানউল্যঅ, উড়িরচর

৪৬

 

 

 

বাঁশখালী

পুকুরিয়া, সাধনপুর, খানখানাবাদ, বাহারছড়া, কালীপুর, বৈলছড়ি, কাথারিয়া, সরল, শীলকূপ, চাম্বল, গন্ডামারা, শেখেরখীল, পুঁইছড়ি, ছনুয়া

৭২

 

 

 

বোয়ালখালী

কধুরখীল, পশ্চিম গোমদন্ডী, পূর্ব গোমদন্ডী, শাকপুরা, সারোয়াতলী, পোপাদিয়, আমুচিয়া, চরণদ্বীপ, শ্রীপুর-খরণদ্বীপ, আহলা করলডেঙ্গগা

৩১

 

 

 

আনোয়ারা

বৈরাগ, বারশত, রায়পুর, বটতলী, বরুমছড়া, বারখাইন, আনোয়ারা, চাতরী, পরৈকোড়া, হাইলধর, জুইদন্ডী

৮৫

 

 

 

সাতকানিয়া

চরতী, ২নং খাগরিয়া, ৩নং নলুয়া, ৪নং কাঞ্চনা, ৫নং আমিলাইষ, ৬নং এওচিয়া, ৭নং মাদার্শা, ৮নং ঢেমশা, ৯নং পশ্চিম ঢেমশা, ১০নং কেঁওচিয়া, ১১নং কালিয়াইশ, ১২নং ধর্মপুর, ১৩নং বাজালিয়া, ১৪নং পুরানগড়, ১৫নং ছদাহা, ১৬নং সাতকানিয়া, ১৭নং সোনাকানিয়া

৭৩

 

 

 

লোহাগড়া

পদুয়া, বড়হাতিয়া, আমিরাবাদ, লোহাগাড়া, কলাউজান, চরমবা, আধুনগর, চুনতি, পুটিবিলা

৪০

 

 

 

হাটহাজারী

১নং ফরহাদাবাদ, ২নং ধলই, ৩নং মির্জাপুর, ৪নং গুমানমর্দ্দন, ৫নং নাঙ্গলমোড়া, ৬নং ছিপাতলী, ৮নং মেখল, ৯নং গড়দুয়ারা, ১০নং উত্তর মাদার্শা, ১১নং ফতেপুর, ১২নং চিকনদন্ডী, ১৩নং দক্ষিন মাদার্শা, ১৪নং শিকারপুর, বুড়িশ্চর

৪৮

 

 

 

ফটিকছড়ি

বাগানবাজার, দাঁতমারা, নারায়নহাট, ভূজপুর, হারুয়ালছড়ি, পাইন্দং, কাঞ্চননগর, সুন্দরপুর, সুয়াবিল, দৌলতপুর, লেলাং, নানুপুর, রোসাংগিরী, বক্তপুর, জাফতনগর, ধর্মপুর, সমিতিরহটি, আব্দুল্লাপুর, বাগানবাজার

১০২

 

 

 

রাউজান

হলদিয়া, ডাবুয়া, চিকদাইর, গহিরা, বিনাজুরী, রাউজান, কদলপুর, পাহাড়তলী, পূর্ব গুজরা, পশ্চিম গুজরা, উরকিরচর, নোয়াপাড়া, বাগোয়ান,  নোয়াজিশপুর

৬৪

 

 

 

চন্দনাইশ

কাঞ্চনাবাদ, জোয়ারা, বরকল, বরমা, বৈলতলী, সাতবাড়িয়া, হাশিমপুর, দোহাজারী, ধোপাছড়ি

৪৪

 

 

 

 

সূত্রঃ জেলা / উপজেলা ওয়েব-পোর্টাল ।

 

১.৩.৩ জনসংখ্যা

 

উপজেলা/ ইউনিয়ন নং

পুরুষ

মহিলা

শিশু (০-১৫)

বৃদ্ধ (৬০+)

প্রতিবন্ধি

মোট জনসংখ্যা

পরিবার / খানা

ভোটার

মীরেরস্বরাই

১৮৭৩২৩

২১১৩৯৩

১৩৬৩৬১

৩৫০৮৭

১২৭৫৯

৩৯৮৭১৬

৭৯৫৪৫

২৭৩৩৩৯

সীতাকুন্ড

২০২১৩৭

১৮৫৬৯৫

১২২৫৫৫

২৫২০৯

৯৩০৮

৩৮৭৮৩২

৭৭২৭৯

২৫৮৪৩৩

রাউজান

১৫৬২৫৫

১৬৬৫৮৫

১০৬৫৩৭

২৫৫০৪

৮৮১৪

৩২২৮৪০

৬৩৩৭৫

২৩৬৮৯২

রাঙ্গুনিয়া

১৬৮৪১২

১৭০৫৯২

১২০৬৮৫

২৪৪০৮

৮৮১৪

৩৩৯০০৪

৬৭৭৯২

২১৭৯৩১

ফটিকছুড়ি

২৫৯৭৩০

২৬৬২৭৩

১৯৭২৫১

৩৭৮৭২

১৪২০২

৫২৬০০৩

১০০০০৯

৩২৬১৬৪

বোয়ালখালী

১০৯২৭৩

১১৩৮৫২

৭৩৪০৮

১৬২৮৮

৬০২৪

২২৩১২৫

৪৪১০৮

১৫৮৩২৯

হাটহাজারী

২১৫২০১

২১৬৫৪৭

১৪৬৭৯৪

২৭৬৩২

১০৭৯৪

৪৩১৭৪৮

৮১২৯২

২৬৫৩৯৮

চন্দনাইশ

১১৭৪১৮

১১৫৫৯৯

৮৫৫১৭

১৬০৭৮

৬৫২৪

২৩৩০১৭

৪৪৪৩৮

১৪০৩৮৪

সাতকানিয়া

১৮৬০০৭

১৯৮৭৯৯

১৫৫০৭৭

২৬৫৫২

১৩৪৬৮

৩৮৪৮০৬

৭০৮০৮

২৪৬৭৯৩

লোহাগড়া

১৩৫৭১৭

১৪৪১৯৬

১১৪৪৮৪

১৯৩১৪

৮৯৫৭

২৭৯৯১৩

৫২৮৭৩

১৬৫৭৫৮

বাশঁখালী

২১২০১১

২১৯১৫১

১৮৯২৮০

২৭১৬৩

১৪৬৫৯

৪৩১১৬২

৮৪২১৬

২৬৮৭৮১

পটিয়া

২৬৬১৫৩

২৬১৯৬৭

১৮২২০১

৩৫৩৮৪

১৫৩১৫

৫২৮১২০

১০১৫৯৯

৩৪৬৪৭৮

আনোয়ারা

১২৬৭০৯

১৩২৩১৩

১০১২৭৮

১৭৮৭৩

৯৮৪৩

২৫৯০২২

৪৯৯৬৬

১৭৭০০১

সন্দ্বীপ

১২৮৬৫৬

১৪৯৯৪৯

১০৮০৯৯

২৩৪০৩

৯১৯৪

২৭৮৬০৫

৫৬৬১৭

১৭৭৮৭০

মোট

২৪৭১০০২

২৫৫২৯১১

১৮৩৯৫২৭

৩৫৭৭৬৭

১৪৮৬৭৫

৫০২৩৯১৩

৯৭৩৯১৭

৩২৫৯৫৫১

 

সূত্রঃ ভোটার তালিকা সংগৃহীত চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন অফিস থেকে (মাহমুদুল ইসলাম-ইউডি), ২০১৩ সালে হিসাব থেকে। অন্যান্য সকল কলামের তথ্য আদমশুমারী ২০১১ অনুসারে সংগৃহীত হয়েছে। জেলা পরিসংখ্যান – ২০১৩, চট্টগ্রাম

১.৪  অবকাঠামো ও অ-অবকাঠামো সংক্রান্ত তথ্যগুলোর সংক্ষিপ্ত ভাবে বর্ননা থাকতে হবে

 

১.৪.১ অবকাঠামো

 

বাধঁ ও সুইচ গেটঃ

 

ক্রমিক নং

প্রকল্পের নাম

অবকাঠোমোর বিবরণ

অবস্থান (জেলা/ উপজেলা)

পরিমান (কিঃমিঃ / সংখ্যা)

নির্মাণ সাল/ চলমান প্রস্তাবিত

অবকাঠামো নির্মাণের উদ্দেশ্য

অবকাঠামোর বতর্মান অবস্থা

মন্তব্য

১।

পোল্ডার নং - ৬৩/ ১এ

বাঁধ

চট্টগ্রাম/ আনোয়ারা

৪৮.৪০ কিঃমিঃ

১৯৬৩ থেকে ১৯৮৭ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন ও সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

সেচ খাল

-ঐ-

৪৮.০০ কিঃমিঃ

১৯৬৩ থেকে ১৯৮৭ ইং

সেচ সুবিধা প্রদান।

সেচ খাল পুনঃ খনন প্রয়োজন।

 

রেগূলেটর/ সুঁইচ (ধরণ সহ)

-ঐ-

২৪ টি

১৯৬৩ থেকে ১৯৮৭ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন ও সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

প্রতিরক্ষা কাজ

-ঐ-

১.৬০ কিঃমিঃ

১৯৬৩ থেকে ১৯৮৭ ইং

নদী ভাঙ্গন থেকে রক্ষা।

পুরাতন কাজ মেরামত প্রয়োজন এবং আরও ২.৫০ কিঃমিঃ নতুন প্রয়োজন।

 

২।

পোল্ডার নং - ৬৩/ ১বি

বাঁধ

চট্টগ্রাম/ আনোয়ারা

২৮.১৭৫ কিঃমিঃ

১৯৯৪ থেকে ২০০৬ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন ও সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

সেচ খাল

-ঐ-

৮২.০০ কিঃমিঃ

১৯৯৪ থেকে ২০০৬ ইং

সেচ সুবিধা প্রদান।

সেচ খাল পুনঃ খনন প্রয়োজন।

 

রেগূলেটর/ সুঁইচ (ধরণ সহ)

-ঐ-

৯টি

১৯৯৪ থেকে ২০০৬ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন ও সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

প্রতিরক্ষা কাজ

-ঐ-

-

-

নদী ভাঙ্গন থেকে রক্ষা।

১০০০ কিঃমিঃ নতুন প্রয়োজন

 

৩।

পোল্ডার নং - ৬২

বাঁধ

চট্টগ্রাম/ পতেঙ্গা, বন্দর, হালিশহর, পাহাড়তলী, সিতাকুন্ড।

২১.৭০ কিঃমিঃ

১৯৯৬ থেকে ২০০১ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন।

মেরামত প্রয়োজন।

 

সেচ খাল

-ঐ-

৭৪.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৫ থেকে ১৯৯৬ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন।

খাল পুনঃ খনন প্রয়োজন।

 

রেগূলেটর/ সুঁইচ (ধরণ সহ)

-ঐ-

১৪ টি

১৯৮৫ থেকে ১৯৯৬ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন।

মেরামত প্রয়োজন।

 

প্রতিরক্ষা কাজ

-ঐ-

৪.৫৫ টি

১৯৯২ থেকে ২০০১ ইং

বাঁধের ভাঙ্গন থেকে রক্ষা।

পুরাতন কাজ মেরামত প্রয়োজন

 

প্রতিরক্ষা কাজ (সী-ওয়াল)

চট্টগ্রাম/ বন্দর।

১.৪০ কিঃমিঃ

১৯৯২ থেকে ২০০৬ ইং

সমুদ্রের ভাঙ্গন থেকে নেভার একাডেমী রক্ষা।

-

 

৪।

ভেল্লাপাড়া উপ- প্রকল্প

বাঁধ

চট্টগ্রাম/ পটিয়া।

-

-

-

-

 

সেচ খাল

-ঐ-

৪৫.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৫ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন ও সেচ সুবিধা।

খাল পুনঃ খনন প্রয়োজন।

 

রেগূলেটর/ সুঁইচ (ধরণ সহ)

-ঐ-

১ টি

১৯৮৫ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন ও সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

প্রতিরক্ষা কাজ

-ঐ-

২ টি

১৯৮৫ ইং

যাতায়াতের সুবিধা।

-

 

৫।

শিলক মিঠাছড়া ‍উপ-প্রকল্প

বাঁধ (গাইড)

চট্টগ্রাম/ হাটহাজারী

১.০০ কিঃমিঃ

২০০৫ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

সেচ খাল

-ঐ-

১.২০ কিঃমিঃ

২০০৫ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

খাল পুনঃ খনন প্রয়োজন।

 

রেগূলেটর/ সুঁইচ (ধরণ সহ)

-ঐ-

১ টি

২০০৫ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

৬।

ধৃরং সেচ প্রকল্প।

বাঁধ (গাইড)

চট্টগ্রাম/ ফটিকছড়ি

৩৬.০০ কিঃমিঃ

১৯৬৩ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

সেচ খাল

-ঐ-

২১.৬০ কিঃমিঃ

১৯৬৩ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

খাল পুনঃ খনন প্রয়োজন।

 

রেগূলেটর/ সুঁইচ (ধরণ সহ)

-ঐ-

১৫টি

১৯৬৩ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

৭।

কণর্ফুলী সেচ প্রকল্প (হালদা পিটি-১)

বাঁধ (গাইড)

চট্টগ্রাম/ ফটিকছড়ি

৬০.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৪ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন।

মেরামত প্রয়োজন।

 

৮।

ফটিকছড়ি বন্যা নিযন্ত্রন ও সেচ প্রকল্প

বাঁধ (গাইড)

চট্টগ্রাম/ ফটিকছড়ি

৬৪.৩৬ কিঃমিঃ

১৯৮৫ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন।

মেরামত প্রয়োজন।

 

সেচ খাল

-ঐ-

১৬৪.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৫ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

খাল পুনঃ খনন প্রয়োজন।

 

রেগূলেটর/ সুঁইচ (ধরণ সহ)

-ঐ-

৫টি

১৯৮৫ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

৯।

মন্দাকিনি সেচ উপ- প্রকল্প

বাঁধ (গাইড)

চট্টগ্রাম/ ফটিকছড়ি ও হাটহাজারী

১৪.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৪ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

সেচ খাল

-ঐ-

১০.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৪ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

খাল পুনঃ খনন প্রয়োজন।

 

রেগূলেটর/ সুঁইচ (ধরণ সহ)

-ঐ-

১টি

১৯৮৪ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

১০।

শিয়লবুক্কা সেচ উপ- প্রকল্প

বাঁধ (গাইড)

চট্টগ্রাম/ রাঙ্গুনিয়া।

৬.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৪ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

সেচ খাল

-ঐ-

১২.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৪ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

খাল পুনঃ খনন প্রয়োজন।

 

রেগূলেটর/ সুঁইচ (ধরণ সহ)

-ঐ-

১টি

১৯৮৪ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

১১।

নিশ্চিন্তপুর সেচ উপ- প্রকল্প

বাঁধ (গাইড)

চট্টগ্রাম/ ফটিকছড়ি

৭.০০ কিঃমিঃ

২০০৫ ইং

সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

সেচ খাল

-ঐ-

৬.৫০ কিঃমিঃ

২০০৫ ইং

সেচ সুবিধা।

খাল পুনঃ খনন প্রয়োজন।

 

পাম্প হাউস

-ঐ-

 

২০০৫ ইং

সেচ সুবিধা।

রি-মডেলিং প্রয়োজন।

 

প্রতিরক্ষা কাজ

-ঐ-

০.১৭০ কিঃমিঃ

২০০৫ ইং

বাঁধের ভাঙ্গন থেকে রক্ষা।

পুরাতন কাজ মেরামত প্রয়োজন।

 

ব্রীজ/ কালর্ভাট

-ঐ-

৫টি

২০০৫ ইং

যাতায়াতের সুবিধা।

খাল পুনঃ খনন প্রয়োজন।

 

১২।

হালদা সম্প্রসারণ সেচ উপ- প্রকল্প

 

বাঁধ (গাইড)

চট্টগ্রাম/ হাটহাজারী

১৪.৫০ কিঃমিঃ

১৯৮৫ থেকে ২০০৫ ইং

সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

সেচ খাল

-ঐ-

২৬.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৫ থেকে ২০০৫ ইং

সেচ সুবিধা।

খাল পুনঃ খনন প্রয়োজন।

 

পাম্প হাউস

-ঐ-

২টি

১৯৮৫ থেকে ২০০৫ ইং

সেচ সুবিধা প্রদান।

মেরামত প্রয়োজন।

 

ব্রীজ/ কালর্ভাট

-ঐ-

১৮টি

১৯৮৫ থেকে ২০০৫ ইং

যাতায়াতের সুবিধা।

পুরাতন কাজ মেরামত প্রয়োজন।

 

সড়ক (রাস্ত)

-ঐ-

৬.৫০ কিঃমিঃ

১৯৮৫ থেকে ২০০৫ ইং

যাতায়াতের সুবিধা।

রাস্তা মেরামত প্রয়োজন।

 

১৩।

বান্দরবান শহর সংরক্ষণ প্রকল্প

প্রতিরক্ষা কাজ

বান্দরবান/ বান্দরবান সদর,

১.০৩০ কিঃমিঃ

১৯৭৮ ইং

শহর ভাঙ্গন থেকে রক্ষা।

প্রতিরক্ষা কাজ মেরামত প্রয়োজন।

 

১৪।

নদী তীর সংরক্ষণ উন্নয়ন ও শহর সংরক্ষণ প্রকল্প।

বাঁধ

চট্টগ্রাম/ সাতকানিয়া।

১.১৯১ কিঃমিঃ

২০০৪-০৫ থেকে ২০০৫-০৬ ইং

নদীর ভাঙ্গন থেকে রক্ষা।

প্রতিরক্ষা কাজ মেরামত প্রয়োজন।

 

১৫।

কাটাখালি হিলিমিলি সিষ্টেম

বাঁধ

চট্টগ্রাম/ সাতকানিয়া।

২০.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৭-৮৮ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ।

বাঁধ মেরামত প্রয়োজন।

 

সেচ খাল

-ঐ-

১০.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৭-৮৮ ইং

সেচ সুবিধা।

খাল পুনঃ খনন প্রয়োজন।

 

রেগূলেটর/ সুঁইচ (ধরণ সহ)

-ঐ-

২টি

১৯৮৭-৮৮ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

১৬

হাঙ্গর খাল বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং

বাঁধ

চট্টগ্রাম/ সাতকানিয়া, লোহাগড়া।

৪২.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৭-৮৮ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

বাঁধ মেরামত প্রয়োজন।

 

সেচ খাল

-ঐ-

২৫.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৭-৮৮ ইং

সেচ সুবিধা।

খাল পুনঃ খনন প্রয়োজন।

 

রেগূলেটর/ সুঁইচ (ধরণ সহ)

-ঐ-

১টি

১৯৮৭-৮৮ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

খাল পুনঃ খনন প্রয়োজন।

 

১৭।

টংকাবতী খাল বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ প্রকল্প

বাঁধ

চট্টগ্রাম/ লোহাগড়া।

২০.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৮-৮৯ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

বাঁধ মেরামত প্রয়োজন।

 

১৮।

ডলু খালের উভয় তীরে বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ প্রকল্প।

বাঁধ

চট্টগ্রাম/ সাতকানিয়া, লোহাগড়া।

৬৪.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৮-৮৯ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

বাঁধ মেরামত প্রয়োজন।

 

সেচ খাল

-ঐ-

৩০.০০ কিঃমিঃ

১৯৮৮-৮৯ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন।

-

 

১৯।

লালুটিয়া সেচ প্রকল্প।

সেচ খাল

চট্টগ্রাম/ চন্দনাইশ

.৫০ কিঃমিঃ

১৯৯৮-৯৯ ইং

সেচ সুবিধা।

নতুন ১.৫০ কিঃমি খাল প্রয়োজন।

 

পাম্প হাউস

-ঐ-

১টি

১৯৯৮-৯৯ ইং

সেচ সুবিধা প্রদান।

-

 

২০।

শ্রীমাই খাল বন্যা নিয়ন্ত্রন প্রকল্প।

বাঁধ

চট্টগ্রাম/ পটিয়া

১৮.০০ কিঃমিঃ

১৯৯৮ থেকে ১৯৯৯ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন।

বাঁধ মেরামত প্রয়োজন।

 

সেচ খাল

-ঐ-

১০.০০ কিঃমিঃ

১৯৯৮ থেকে ১৯৯৯ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন।

-

 

২১।

শোভনদন্দি বন্যা নিয়ন্দ্রন ও সেচ প্রকল্প।

বাঁধ

চট্টগ্রাম/ পটিয়া, চন্দনাইশ।

১৮.৯০ কিঃমিঃ

১৯৮২ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন।

-

 

সেচ খাল

-ঐ-

৫০.০০ কিঃমিঃ

১৯৮২ ইং

সেচ ও বন্যা নিয়ন্ত্রন।

-

 

রেগূলেটর/ সুঁইচ (ধরণ সহ)

-ঐ-

৫টি

১৯৮২ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন এবং সেচ সুবিধা।

মেরামত প্রয়োজন।

 

২২।

সাঙ্গু নদী বন্যা নিয়ন্ত্রন ও তীর সংরক্ষণ প্রকল্প।

বাঁধ

চট্টগ্রাম/ সাতকানিয়া, চন্দনাইশ, আনোয়ারা

১১.০০ কিঃমিঃ

১৯৯৪ থেকে ২০১২ ইং

বন্যা নিয়ন্ত্রন।

-

 

প্রতিরক্ষা কাজ

-ঐ-

৫.২০ কিঃমিঃ

১৯৯৪ থেকে ২০১২ ইং

নদী ভাঙ্গন থেকে তীর রক্ষা।

পুরাতন কাজ মেরামত প্রয়োজন এবং নতুন আরো ৬.০০ কিঃমিঃ কাজ করা প্রয়োজন।

 

 

চট্টগ্রাম জেলার প্রায় প্রতিটি উপজেলায়ই সুইচগেট রয়েছে। এই সুইচগেট গুলো পানির রেগুলেটর বা পানি সংরক্ষন অবকাটামো হিসেবে কাজ করে। জোয়ারের পানি ঢুকলে সুইচ গেটগুলো আটকিয়ে দেয়া হয় যাতে করে ভাটার পানি নেমে যেতে না পারে।

 

সূত্র ঃ পানি উন্নয়ন বোর্ড

 

 

ব্রীজ ও কালভার্টঃ

 

ক্রমিক নং

উপজেলা

ব্রীজসংখ্যা

বেইলি ব্রীজ

কালভার্ট

সংখ্যা

সংক্ষিপ্ত বর্ননা

আনোয়ারা 

২৮০

সমগ্র চট্টগ্রাম জেলায় ৫৮২২টি কালভার্ট আছে । কালভার্টগুলোর উচ্চতা ১০ থেকে ১২ ফুট পর্যন্ত । কালভার্টের দৈর্ঘ্য ৬ মিটার বা ১৮ থেকে ২০ ফুট পর্যন্ত ।

 

বাশখালী

৬২০

বোয়ালখালী 

১৭০

৪৮০

চন্দনাইশ

১৫

৪৭০

চট্টগ্রাম মহানগরী

৩০

২৩২

ফটিক ছড়ি

১২০

৪১৫

হাটহাজারী

৪৮৬

লোহাগাড়া

৬৮

১১

৭৪০

মীরেরস্বরাই  

১৭

৯৬

১০

পটিয়া

১৮৭

৪৫৪

১১

রাংগুনিয়া

১০

১০

১২

রাউজান

৩৪৬

১৩

সন্দ্বীপ  

৮৯০

১০১২

১৪

সাতকানিয়া

৪৮

১৮৭

১৫

সীতাকুন্ড

৭৫৬

 

মোট

২৩২৯

৬৪

৫৮২২

 

সূত্রঃ জেলা পরিসংখ্যান – ২০১৩, চট্টগ্রাম

 

রাস্তাঃ

 

ক্রঃ

উপজেলা

রাস্তা  কত  কি.মি.

কোথা থেকে কোথা পর্যন্ত

উচ্চতা

কত কিলোমিটার বন্যা মুক্ত

সংক্ষিপ্ত বর্ননা

পাকা

কাচা

HBB

CC

মীরেরস্বরাই

২২০.৭

৯৩২

১১৫.৪

১.৬

 

 

 

 

ফটিক ছড়ি

৯৮.৩

১২০০.৯

১৫৪

১.৯

 

 

 

 

সীতাকুন্ড

১৬৪.৯

২৯৫.১

৭৯.৩

৩.৪

 

 

 

 

হাটহাজারী

১৪১.৯

৪৮৭.৫

১৫৫.৬

১.৬

 

 

 

 

রাউজান

১২৫.৩

৭৫২.১

২০৯.৫

 

 

 

 

রাংগুনিয়া

৮২.৭

৫৫৩.৯

১১০.৫

 

 

 

 

বোয়ালখালী

১০৬.৯

৩০৮.৭

১৮১.৪

০.৬

 

 

 

 

পটিয়া

১৪৩.৬

৫৩০.৫

৩০৬.৮

১.৩

 

 

 

 

আনোয়ারা

১০৪.৬

৩৪৯.৬

৬৩.৯

১.১

 

 

 

 

১০

চন্দনাইশ

৭৬.১

১৮৬.৯

১৪৯.৮

১.৫

 

 

 

 

১১

সাতকানিয়া

১১২.৮

৪৪৪.৫

১৩০.৭

৬.৯

 

 

 

 

১২

লোহাগাড়া

৯৩.৮

৮৯৬.৯

১২৩.৫.

০.৬

 

 

 

 

১৩

বাঁশখালী

১০৮.৩

৭২৫.৭

১৮১.২

০.২

 

 

 

 

১৪

সন্দ্বীপ

২০৮

৪৩৪.৬

০.৭

১২৩.১

 

 

 

 

 

 

১৫৮২.৭

৮০৮৯.৯

১৯৬২.৩

১৫১.৮

 

 

 

 

 

হাটবাজারঃ

 

ক্রঃ

উপজেলার নাম

হাটবাজারের সংখ্যা

দোকান সংখ্যা

সমিতি

ইত্যাদির বর্ননা

০১

মীরেরস্বরাই

৪৮

 

৪৮টি

 

০২

ফটিক ছড়ি

৫০

৫০০০টি

৫০টি

১৫ থেকে ২০টি হাট বাজার বন্যার সময়ে তলিয়ে যায়। হাট-বাজারে প্রায়ই অধিকাংশ খাবার পাওয়া যায়। এই হাট-বাজারে দোকান ঘর ৩০% পাকা এবং ৭০% কাঁচা।

০৩

সীতাকুন্ড

২১

২৯৩৫টি

২১টি

এই উপজেলায় ১৯৯১ সালে ঘূর্নি ঝড় ও জলোচ্ছ্বাসে  হাট-বাজার পানিতে তলিয়ে যায়। তখন পানির উচ্চতা ছিল ০৩ থেকে ০৪ ফুট পর্যন্ত । এর পরে আর কখনও হাট-বাজার গুলো তলায় নাই। হাট-বাজারের দোকান ঘর ৩৮% পাকা এবং ৬২% কাঁচা.এখানে সব সময় চিড়া,গুড়,মুড়ি পাওয়া যায়

০৪

হাটহাজারী

৩৪

১৩৫০০টি

৩৪টি

এই উপজেলায় ০৫টি হাট-বাজার বন্যার পানিতে তলিয়ে যায় এবং হাটু পরিমান পানি হয়। হাট-বাজারের দোকান ঘর ৯০% পাকা এবং ১০% কাঁচা। এই হাট-বাজার গুলোতে সকল সময় চিড়া,গুড়,মুড়ি পাওয়া যায়।

০৫

রাউজান

২৫

 

 

 

০৬

রাংগুনিয়া

১৪

২০০০টি

১৪টি

এই উপজেলায় সব কয়টি হাট-বাজার পাহাড়ী ঢলের পানিতে তলিয়ে যায় এবং হাটু পরিমান পানি হয়। পরে পানি নেমে গেলে  আস্তে  আস্তে  ঠিক হয়। হাট-বাজারের দোকান ঘর ৫০% পাকা এবং ৫০% সেমি পাকা ও কাঁচা। এই হাট-বাজার গুলোতে সকল সময় চিড়া, গুড়, মুড়ি পাওয়া যায়।

০৭

বোয়ালখালী

২১

 

 

 

০৮

পটিয়া

৩৫

৩৫০০টি

৩৫টি

এই উপজেলায় ০৪টি হাট-বাজার বন্যার পানিতে তলিয়ে যায়। হাট-বাজারের দোকান ঘর ৩৫% পাকা এবং ৬৫% কাঁচা। এই হাট-বাজার গুলোতে সকল সময় চিড়া,গুড়,মুড়ি পাওয়া যায়।

০৯

আনোয়ারা

১৮

 

 

 

১০

চন্দনাইশ

২০

৪৫০০টি

২০টি

এই উপজেলায় বন্যায় কখনও হাট-বাজার পানিতে তলিয়ে যায়নি। হাট-বাজারের দোকান ঘর ৩০% পাকা এবং ৭০% কাঁচা.এখানে সব সময় চিড়া,গুড়,মুড়ি পাওয়া যায়।

১১

সাতকানিয়া

১৮

৮০০০টি

১৮টি

এই উপজেলায় বন্যায় কখনও হাট-বাজার পানিতে তলিয়ে যায়নি। হাট-বাজারের দোকান ঘর ৪০% পাকা এবং ৬০% কাঁচা.এখানে সব সময় চিড়া,গুড়,মুড়ি পাওয়া যায়।

১২

লোহাগাড়া

১৭

৩৫০০টি

১৭টি

এই উপজেলায় ০৫টি হাট-বাজার বন্যার পানিতে তলিয়ে যায়। হাট-বাজারের দোকান ঘর ৩০% পাকা এবং ৭০% কাঁচা। এই হাট-বাজার গুলোতে সকল সময় চিড়া,গুড়,মুড়ি পাওয়া যায়।

১৩

বাঁশখালী

৪০

৮০০০টি

৪০টি

এই উপজেলায় ১০টি হাট-বাজার বন্যার পানিতে তলিয়ে যায়। হাট-বাজারের দোকান ঘর ৩০% পাকা এবং ৭০% কাঁচা। এই হাট-বাজার গুলোতে সকল সময় চিড়া,গুড়,মুড়ি পাওয়া যায়।

১৪

সন্দ্বীপ

১৫

১৫০০টি

১৫টি

এই উপজেলায় ০৮টি হাট-বাজার বন্যার পানিতে তলিয়ে যায় এবং হাটু পরিমান পানি হয়। হাট-বাজারের দোকান ঘর ৩০% পাকা এবং ৭০% কাঁচা। এই হাট-বাজার গুলোতে সকল সময় চিড়া, গুড়, মুড়ি পাওয়া যায়।

 

১.৪.২ সামাজিক সম্পদ

 

ঘরবাড়িঃ

 

উপজেলার নাম

মোট ঘরের সংখ্যা

পাকা

আধা পাকা

কাচা

ঝুপরী

কি ধরনের ঘরবাড়ী , কি কি দিয়ে তৈরী ইত্যাদির সংক্ষিপ্ত বর্ননা

মীরেরস্বরাই

৭৯২২২

৭৬০৫.৩

৭২৮৮.৪

৬২৭৪৩.৮

১৬৬৩.৭

চট্টগ্রাম জেলার ৭০% ঘর-বাড়ী কাচাঁ। ঘর-বাড়ী তৈরী করা হয় বাঁশের বেড়া ও টিনের ছাউনি দিয়ে এবং কিছু ঘর-বাড়ী আছে মাটি দিয়ে তৈরী। বাকী ৩০% ঘর-বাড়ী পাঁকা যা ইট, বালু ও সিমেন্ট তৈরী । উপকুলীয় উপজেলা গুলোতে ঝড়, জলোচ্ছ্বাস  ও বন্যা হলে অধিকাংশ বাড়িঘর ক্ষতিগ্রন্থ হয়।

ফটিক ছড়ি

৯৯৫১৫

১৩৫৩৪.০৪

১২৫৩৮.৮৯

৬৭৫৭০.৬৮৫

৫৭৭১.৮৭

সীতাকুন্ড

৭৫৯৯১

১০০৩০.৮

১০২৫৮.৮

৫৩৪৯৭.৭

২২৭৯.৭

হাটহাজারী

৮০২৭৭

২২৬৩৮.১১৪

১৮৪৬৩.৭১

৩৭০৮৭.৯৭৪

২১৬৭.৪৭৯

রাউজান

৬২৯৭০

১৪১৬৮.৩

১০৫৭৯.০

৩৫৩২৬.২

২৮৯৬.৬

রাংগুনিয়া

৬৭১৭৪

৭৩৮৯.১

৬১১২.৮

৫০৩১৩.৩

৩২৯১.৫

বোয়ালখালী

৪৩৯৪৪

৭২৫০.৮

৪৭০২.০

২৯০৪৭.০

২৯৪৪.২

পটিয়া

১০০৯৯৬

১৪৯৪৭.৪

১৫০৪৮.৪

৬৬৪৫৫.৪

৪৫৪৪.৮

আনোয়ারা

৪৯৭২৭

৬৩৬৫.০৫৬

৭২৬০.১৪২

৩০১৩৪.৫৬২

৬০১৬.৯৬৭

চন্দনাইশ

৪৪০২৩

৫৫০২.৮৭৫

৫৩২৬.৭৮৩

২৯৬২৭.৪৭৯

৩৫৬৫.৮৬৩

সাতকানিয়া

৭০৫১২

১১২৮১.৯

৯৫৮৯.৬

৩৪৬২১.৪

১৫০৮৯.৬

লোহাগাড়া

৫২৪১২

৭৭০৪.৫৬৪

৫৬৬০.৪৯৬

৩৫৩২৫.৬৮৮

৩৬৬৮.৮৪

বাঁশখালী

৮৪০৮৭

৮৪০.৮৭

৫৩৮১.৫৬৮

৬০৫৪.২৬৪

৫৮৪৪০.৪৬৫

সন্দ্বীপ

৫৬৪৭৩

১১৮৫.৯

১৩৭৭৯.৪

৩৭৮৯৩.৪

৩৫৫৭.৮

মোট

১৫০৯৭১৭

৩৭৭৪২৯.২৫

৩১১০০১.৭০২

৭২৯১৯৩.৩১১

৯২০৯২.৭৩৭

পানিঃ

 

ক্রঃ

উপজেলার নাম

মোট নলকুপ

ভাল  নলকুপ

নষ্ট নলকুপ

বন্যা লেভেলের উপরে

বন্যার সময় ব্যবহার উপযোগী

নলকুপের পানি ব্যবহাকারীর (%)

০১

মীরেরস্বরাই

৪৯৯২

৪৮০৮

১৮৪

৬০%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৬০%ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৮০%অধিবাসী পানি ব্যবহার করে।

০২

ফটিক ছড়ি

৫০৮২

৪৮৯৯

১৮৩

৮০%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৮০% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৯০%অধিবাসী পানি ব্যবহার করে থাকে।

০৩

সীতাকুন্ড

৩১৭৩

২৯৯৪

১৭৯

 

 

৭০% অধিবাসী পানি ব্যবহার করে।

০৪

হাটহাজারী

৪৫৮৮

৪৪৪৬

১৪২

 

 

 

০৫

রাউজান

৪০৭৩

৩৯১৮

১৫৫

৯০%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৯০% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৮৫%অধিবাসী পানি ব্যবহার করে থাকে।

০৬

রাংগুনিয়া

৪০৭৯

৩৯১৬

১৬৩

৭০%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৭০% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৯৫%অধিবাসী পানি ব্যবহার করে থাকে।

০৭

বোয়ালখালী

৩৭১৮

৩৫৩৬

১৮২

৬০% বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৬০% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৮৭%অধিবাসী পানি ব্যবহার করে থাকে।

০৮

পটিয়া

৬৮৮৬

৬৩০৬

৫৮০

৫৫% বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৫৫% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৮০%অধিবাসী পানি ব্যবহার করে থাকে।

০৯

আনোয়ারা

৩৫৬০

৩০৬১

৪৯৯

৬০%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৬০% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৯৫%অধিবাসী পানি ব্যবহার করে থাকে।

১০

চন্দনাইশ

২৯১৫

২৬৭৯

২৩৬

১০০%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

১০০% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৯৫%অধিবাসী পানি ব্যাবহার করে থাকে।

১১

সাতকানিয়া

৫২৩৩

৪৯৯৮

২৩৯

২০%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

২০%ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৯০%অধিবাসী পানি ব্যবহার করে থাকে।

১২

লোহাগাড়া

৩১৪৩

২৫৪৫

৫৯৮

৩৫%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৩৫%ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৮০%অধিবাসী পানি ব্যবহার করে থাকে।

১৩

বাঁশখালী

৪৪৩৬

৪০০৮

৪২৭

৭০%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৭০%ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৯০%অধিবাসী পানি ব্যবহার করে থাকে।

১৪

সন্দ্বীপ

৬৫৭৯

৪৭৩৩

১৮৪৬

৩০%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৩০%ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৬০%অধিবাসী পানি ব্যবহার করে।

 

পয়ঃনিস্কাশন ব্যবস্থাঃ

 

ক্রঃ

উপজেলার নাম

স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা কয়টি

কতগুলো বন্যা লেভেলের উপরে

বন্যার সময় কতগুলো ব্যবহার উপযোগী থাকে

কত শতাংশ মানুষ স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা ব্যবহার করে

০১

মীরেরস্বরাই

৫৬৯৫০

৬০% উপরে থাকে।

৬০% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৯০%অধিবাসী ব্যবহার করে

০২

ফটিক ছড়ি

৬৭১৪৯

৭০%বন্যা লেবেরের উপরে থাকে।

৭০% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৯০% অধিবাসী ব্যবহার করে

০৩

সীতাকুন্ড

৩৬৫৯৫

 

 

৯০%অধিবাসী ব্যবহার করে

০৪

হাটহাজারী

৪৩৬৮০

 

 

 

০৫

রাউজান

৩৯০৮০

৬০%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৬০%ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৯৭%অধিবাসী ব্যবহার করে

০৬

রাংগুনিয়া

৩৯২৬২

৮৫%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৮৫% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৯৫%অধিবাসী ব্যবহার করে

০৭

বোয়ালখালী

৩২৩২৭

৬০%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৬০% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৯৬%অধিবাসী ব্যবহার করে

০৮

পটিয়া

৫৪০৮৩

৫৫%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৫৫% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৮৫%অধিবাসী ব্যবহার করে

০৯

আনোয়ারা

৩৮৯০৭

৬০%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৬০% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৯০%অধিবাসী ব্যবহার করে

১০

চন্দনাইশ

৩০০০৮

৭০%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৭০% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৯০%অধিবাসী ব্যবহার করে

১১

সাতকানিয়া

৪৯৪০৫

২০% বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

২০% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৭৫%অধিবাসী ব্যবহার করে

১২

লোহাগাড়া

৩৬১৬৫

৫০%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৫০% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৭০%অধিবাসী ব্যবহার করে

১৩

বাঁশখালী

৪৬৫৭৪

৪৫%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৪৫% ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৬৭%অধিবাসী ব্যবহার করে

১৪

সন্দ্বীপ

৪০২৮৩

৫৫%বন্যা লেবেলের উপরে থাকে।

৫৫%ব্যবহারের উপযোগী থাকে।

৯৫%অধিবাসী ব্যবহারে ক

 

মোট

৬,১০,৪৭৮

 

 

 

 


 

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান/পাঠাগারঃ

 

চট্টগ্রাম জেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তালিকাঃ

 

ক্রমিক নং

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

সংখ্যা

শিক্ষক / শিক্ষিকা

ছাত্র / ছাত্রী সংখ্যা

ছাত্রর সংখ্যা

ছাত্রীর সংখ্যা

০১

সরকারী কলেজ

১০

৫৭১

৩০,০৮৩

১৭৪৫২

১২৬৩১

০২

বে-সরকারী কলেজ

২১

৩৬৬

৮২৮৯

৩৬৫১

৪৬২৮

০৩

সরকারী মাধ্যমিক স্কুল

১৩

৩১২

১২৭৭৪

৮০৭৬

৪৬৯৮

০৪

বে-সরকারী মাধ্যমিক স্কুল

৫৫৭

৭৪০৯

৩,৩৮,০৩৪

১,৪৪,৯৯৪

১,৯৩,০৪০

০৫

সরকারী প্রাথমিক স্কুল

২২০৬

১৪২৭০

৭,৩২,৬৭৩

-

-

০৬

বে-সরকারী প্রাথমিক স্কুল

০৫

২০

৩৫৯৭

-

-

০৭

সিটি কর্পোরেশন রেজিঃ স্কুল

২২

৩৪০

১১৮৬৩

১৯৯৬

৯৮৬৭

০৮

কেজি/কিন্ডার গার্টেন

১২৩৪

-

২৭,৫৮৭

-

-

০৯

মাদ্রাসা

৩১০

৩৬০৯

৮৯,৩৭৮

৪৮৫৮৬

৪০৭৯২

১০

উচ্চ বিদ্যালয়ের সাথে সংযুক্ত

৮৮

-

৪৫,৭১২

-

-

১১

নিন্ম হাই স্কুলের সাথে সংযুক্ত

-

১,৩২২

-

-

১২

এনজিও স্কুল

২০১

-

৩৯,৫১১

-

-

১৩

রক্স প্রকল্প

৮৬

-

৭৭৭

-

-

১৪

পরীলান বিদ্যালয়

১০

৫৩৯

-

-

১৫

অন্যান্য স্কুল

৫৪

-

১,৮৯৪

-

-

 

চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়ের উপজেলা ভিত্তিক শিক্ষা কেন্দ্রের সংখ্যা ২০১৩ পর্যন্তঃ

 

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা কেন্দ্র

বয়স্ক শিক্ষা কেন্দ্র

মোট শিক্ষক সংখ্যা

০১

মীরেরস্বরাই

২৭/২৮

০১

২৮

০২

ফটিক ছড়ি

২০/২১

০১

২১

০৩

সীতাকুন্ড

১৭/১৮

০১

১৮

০৪

মহানগর

৫৩/৫৪

০১

৫৪

০৫

হাটহাজারী

১৬/১৭

০১

১৭

০৬

রাউজান

২৫/২৬

০১

২৬

০৭

রাংগুনিয়া

২১/২২

০১

২২

০৮

বোয়ালখালী

২৩/২৪

০১

২৪

০৯

পটিয়া

৩৩/৩৪

০১

৩৪

১০

আনোয়ারা

১৯/২০

০১

২০

১১

চন্দনাইশ

১৫/১৬

০১

১৬

১২

সাতকানিয়া

১৮/১৯

০১

১৯

১৩

লোহাগাড়া

১৯/২০

০১

২০

১৪

বাঁশখালী

১৮/১৯

০১

১৯

১৫

সন্দ্বীপ

১৬/১৭

০১

১৭

 

 

৩৪০ টি

১৫ টি

৩৫৫ জন

 

ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানঃ

 

জেলা (সমজিদ, মন্দির/গীর্জা, কোথায় সংক্ষিপ্ত বর্ননা ইত্যাদি), উপজেলা ভিত্তিক ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সংখ্যাঃ

 

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

মসজিদ

মন্দির

গীর্জা

বোদ্ধ্য মন্দির

সংক্ষিপ্ত বর্ননা

০১

চট্টগ্রাম মহানগরী

৭৬৬

৯০

১৩

১২

 

০২

ফটিক ছড়ি

৫৯৭

৩৯

 

০৩

বাঁশখালী

৬৫৫

৬১

 

০৪

লোহাগড়া

৪১৫

১৮

৩৬

 

০৫

বোয়ালখালী

২১০

৪৫

১৮

 

০৬

আনোয়ারা

৩৫৬

৮৩

 

০৭

সাতকানিয়া

১০১৫

৭১

১৬

 

০৮

পটিয়া

৩১১

৬১

৩১

 

০৯

সন্দ্বীপ

২৭৫

২৫

 

১০

চন্দনাইশ

৪৮৬

৮২

৩৯

 

১১

সীতাকুন্ড

৩২১

৭৩

 

১২

রাউজান

৩৩৮

৫১

৬৭

 

১৩

হাটহাজারী

২৭০

১০৫

১০

 

১৪

রাংগুনীয়া

৪৬৬

১৭৫

 

১৫

মীরেরস্বরাই

৫৪০

১৩

 

 

ধর্মীয় জমায়েত স্থান (ঈদগাঁহ্)ঃ

 

উপজেলা ভিত্তিক (ধর্মীয় জমায়েত স্থান (ঈদগাঁহ্) কয়টি, কোথায় সংক্ষিপ্ত বর্ননা ইত্যাদি)ঃ

 

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

সংখ্যা

সংক্ষিপ্ত বর্ননা

০১

চট্টগ্রাম মহানগরী

১১২

 

০২

ফটিক ছড়ি

৪৭

 

০৩

বাঁশখালী

 

০৪

লোহাগড়া

১০

 

০৫

বোয়ালখালী

 

০৬

আনোয়ারা

১২

 

০৭

সাতকানিয়া

১৯

 

০৮

পটিয়া

 

০৯

সন্দ্বীপ

৫৩৩

 

১০

চন্দনাইশ

১২

 

১১

সীতাকুন্ড

৪১

 

১২

রাউজান

৬০

 

১৩

হাটহাজারী

১৩

 

১৪

রাংগুনিয়া

৫৪

 

১৫

মীরেরস্বরাই

১৫

 

 

স্বাস্থ্য সেবা

 

ক্রমিক নং

সেবা

মোট

সজ্জা সংখ্যা

 

1.   

মেডিকেলকলেজ

১,০১০

 

2.   

জেনারেলহসপিটাল

২৫০

 

3.   

উপজেলাস্বাস্থকমপ্লেক্স

১৪

৭৩৬

 

4.   

ইউনিয়ন উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র

৭৩

 

5.   

ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যানকেন্দ্র

১২৮

 

6.   

রুরাল/আরবান/উপজেলা ডিসপেন্সারী

 

7.   

কমিউনিটিক্লিনিক

৪০১

 

8.   

ট্রমাসেন্টার

 

9.   

এমসিডাবলিউসি

 

10. 

বক্ষব্যাধিক্লিনিক(টিবি-ক্লিনিক/হসপিটাল)

 

11. 

প্রাইভেটক্লিনিকহসপিটাল

২১

 

12.

এনজিওক্লিনিক/ হসপিটাল

৭৭

 

 

মেডিকেলকলেজঃ

 

আউটডোর সেবাঃ৭.৩০ হইতে ১.৩০ পর্যন্ত। ১০ টাকার টিকিট সংগ্রহ পূর্বক উল্লেখিত আউটডোর বিভাগ সমূহে স্ব স্ব ডাক্তার দেখানোর পর ৯৫% ফ্রি ঔষধ  সেবা পায়। জরুরী কেচ হলে আউটডোর থেকে তাকে ভর্তির ব্যবস্থা করে। উল্লেখিত রোগী পরীক্ষা  নিরীক্ষার ৮০% থেকে ৮৫% সরকারী নির্ধরিত ফি প্রদান পূর্বক সেবা দেয়া হয়। যদি আউটডোর রোগীর কোন মারাত্তক রোগ হয় তাকে তার সকল চিকিৎসা, ফ্রী ঔষধ  পত্র প্রদান করা হয়ে থাকে। জাতীয় কোন দুর্যোগ  বা শিল্প কলকারখানার অগ্নিকান্ড, দূর্ঘটনা, কোন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছাত্র/ছাএীর দূর্ঘটনা ইত্যাদিতে আগত রোগীদের সম্পুর্ন রুপে পরীক্ষা নিরীক্ষা সহ সুস্থ্য হওয়া পর্যন্ত চিকিৎসা সেবা প্রদান করে থাকে। এই হাসপাতালে সার্জারী, মেডিসিন, নাক কান গলা, চক্ষু, চর্ম ও যৌন, মানসিক, এইডস, গাইনী, এম আর ক্লিনিক, শিশু স্বাস্থ্য বর্হিরবিভাগ, ডেন্টাল, ফিজিক্যাল মেডিসিন, ইউরোলোজী, কার্ডিয়ালোজী, রেডিও থেরাপী সার্ভিস সমূহ প্রদান করা হয়ে থাকে।

 

ইনডোর সেবাঃ১০১০ জনের ধারন ক্ষমতা আছে। একটি গ্রূপ প্রতিদিন সকাল ৭.০০টা থেকে ১০টা পর্যন্ত ওয়ার্ডে ভর্তি বিভিন্ন রোগীদের অপারেশন করে থাকে যার সংখ্যা ১০০ থেকে ১২০ জন। হৃদরোগ বিভাগে সরকারী ফি মোতাবেক নামমাএ মূল্যে ই সি জি, ইকো, এনজিওগ্রাম, সেবা দেওয়া হয়। হাসপাতালে অংশগ্রহনমূলক সুপারভিশনের মাধ্যমে মানসম্পন্ন চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে হাসপাতাল কর্মকর্তা, নার্স ও কর্মচারী সমন্বয়ে পরিদর্শন টিম গঠন করা হয়। উক্ত টিমের দলনেতা প্রতিদিন কমপক্ষে ০৫টি ওয়ার্ড পরিদর্শন পূর্বক পরিদর্শন তালিকা তৈরী করে পরিচালক বরাবরে দাখিল করে।

 

ব্যাংকঃ

 

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

সরকারীব্যাংকের  সংখ্যা

বেসরকারী ব্যাংকের  সংখ্যা

বিশেষায়িত ব্যাংকের  সংখ্যা (কৃষি, সমবায় ইত্যাদি)

বিদেশী ব্যাংকের  সংখ্যা

সার্ভিস ইত্যাদি

 

1.        

আনোয়ারা 

অর্থ আদান-প্রদান, ঋণ গ্রহণ, ডিডি, টিটি,  এককালীন জমা, মেয়াদী জমা। চলতি হিসাব ,সঞ্চয়ী হিসাব, স্থায়ী হিসাব খোলা যায় ।

2.       

বাশখালী

3.       

বোয়ালখালী 

4.        

চন্দনাইশ

5.       

চট্টগ্রাম মহানগরী

৯৫

১৪৪

১৪৫

6.       

ফটিক ছড়ি

১২

১৭

7.        

হাটহাজারী

১৬

১৫

8.       

লোহাগাড়া

9.        

মীরেরস্বরাই  

১৮

১১

10.     

পটিয়া

১২

11.     

রাংগুনিয়া

12.    

রাউজান

১৪

13.    

সন্দ্বীপ  

14.     

সাতকানিয়া

15.    

সীতাকুন্ড

১৫

১৫

 

মোট

২১৬

২৪৮

৫১

১৪৫

 

পোস্ট অফিসঃ

 

 

চট্টগ্রাম জেলায় মোট ৪১১টি ডাকঘর রয়েছে এর মধ্যে প্রধান ডাকঘর ২টি, উপজেলা ডাকঘর ১৩টি, টাউন সাব অফিস ৪৭টি, সাব অফিস ৫১টি, ইডিএসও ৯টি, শাখা ডাকঘর ২৮৯ ।

 


সূত্রঃ মোঃ সাইফুল আলম, ষ্টেনো, ডিপিএমজি,  চট্টগ্রাম, ফোন – ০৩১-৬৩৮১৫৭, মোবাইল-০১৭১৫৩৫৫১৭১

 

 

যোগাযোগ ও পরিবহনের মাধ্যমঃ

 

 

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

রেজিষ্টার্ড

নন-রেজিষ্টার্ড

রিক্সা

ভ্যান

ইজি বাইক / অটো-রিক্সা

টেম্পু

রিক্সা

ভ্যান

ইজি বাইক / অটো-রিক্সা

টেম্পু

নসমন/করিমন / ভটভটি

আনোয়ারা 

১৮৫

১৫

৭০

১৯

১৪২

২৮

৯৫

৩৫

বাশখালী

৪৫০

২২৫

৩৭২

৮৫

১২৫

১১১

১৪৮

৫৫

১৫

বোয়ালখালী 

৩০০০

৫০০

৩০০

১২০

১০০০

২০০

৩৫০

১০০

৬৫

চন্দনাইশ

৪১০

৫১

৮০

২৭

১৫০০

১৮০

১৩০

৩৮

১৫০

চট্টগ্রাম মহানগরী

১৬৮৯৩

৩৯৫২

১৬১০

১১০৪

৬০৮৩

১২২০

৩৫১

২৭৮

১৫০

ফটিক ছড়ি

১৭২৬

৮৪৭

৬৭৩

২৫২

৪৪২

২১৫

৪৬

১৩

হাটহাজারী

৪০০

২০০

৫০০

৮০

৫০

১০

লোহাগাড়া

২০০

১০০

১৩০

৫০০

৩০০

৪৭০

মীরেরস্বরাই  

৪৫৬

৪৭

১৬

১৫

৫২৮

২১২

১২৮

২১

৪৯

১০

পটিয়া

৪৬০

৬২

১২

৪২

১৮৬০

২৭০

৩২

১২০

১৭৬

১১

রাংগুনিয়া

২০৩৯

৫২৭

৯৫০

৭৮

৬২৫

১৬৯

৩০৪

২৭

১২

রাউজান

৮০০

৩০

১০

১৩০০

২৮০

২৫

১৩

সন্দ্বীপ  

৩৭০

৭৫

৩৭

১৩

২৭০

১৫০

১২৫

১৫

১৫

১৪

সাতকানিয়া

১৯৬৬

৮৬০

৮৮০

২৪

৬৭৭

৩২৬

৪৬৭

১৫

সীতাকুন্ড

২৫৯৭

১৫৩

৪১

২৩

৭৩

১৭

১৫৩

 

মোট

৩১৯৫২

৭৬৪৪

৫৬৮১

১৮৮২

১৫১৭৫

৩৬৮৮

২৬৪৬

৭১১

৭৯৮

বন ও বনায়নঃ

 

বনভূমির পরিমাণঃ

1)      সংরক্ষিত বনভূমি - ১,১০,১৬১.৮৪ একর (৪৪৫৫৯.৪৫ হেক্টর)

2)      রক্ষিত বনভূমি -  ২৫,৩৮৪.১৩ একর  (১০,২৭৬.৯৮ হেক্টর)

3)     অর্জিত বনভূমি - ৯৪০.৭৮ একর (৩৮০.৮৮ হেক্টর)

4)      অর্পিত বনভূমি - ৩,৪৫০.৬৬ একর ( ১৩৯৭.০০ হেক্টর)

 

উপকূলীয় গাছপালাঃ কেওড়া, বাইন, ববলা, সেগুন, ঝাউ, নুনা ঝাউ, গামারী, চাপালিশ।

 

১.৪.৩আবহাওয়া ও জলবায়ু

 

বৃষ্টিপাতের ধারাঃ

 

জানুয়ারী        -    নিল

ফেব্রুয়ারী        -    .৬ মিলি লিটার

মার্চ              -     নিল

এপ্রিল           -     ৫৮.২ মিলি লিটার

জুন              -     ৪৮২.১ মিলি লিটার

জুলাই           -    ৫২৬.০ মিলিরিটার

আগাষ্ট           -     ৩৫৭.৫ মিলিলিটার

সেপ্টেম্বর        -     ২৪৩.০ মিলিলিটার

অক্টোবার        -     ৩২৫.০ মিরিলিটার

নভেম্বর          -     নিল

ডিসেম্বর         -    নিল

-------------------------

মোটঃ   ২২৬০.১ মিলিরিটার বৃষ্টিপাত হয়

 

বর্ষা মৌসুমে বেশী বৃষ্টিপাত হয়। শীত মৌসুমে তেমন একটা বৃষ্টিপাত হয় না। গরমের সময় মোটামোটিবেশী বৃষ্টিপাত হয়। ইদানিং জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে  বৃষ্টিপাতের পরিবর্তন মোটামুটি লক্ষ্য করা যায়। যেমন গত বছর (২০১২ সালে) প্রায় ৩১০০ মিলিলিটার বৃষ্টিপাত হয়।

 

তাপমাত্রাঃ

 

বছর অন্তর  খুব সামান্য তাপমাত্রা পরিবর্তন হয়। বছরের অন্যান্য মৌসুমের তুলনায় শীত মৌসুমে তাপমাত্রা কম থাকে । ১৫ -২০ বছর অন্তর  লক্ষণীয় তাপমাত্রার পরিবর্তন ঘটে।

 

তাপমাত্রা

মাসের নাম

সর্বোচ্চ

সর্বনিন্ম

জানুয়ারী

২৬.০৮

১৩.০৬

ফেব্রম্নয়ারী

৩১.০২

১৭.০০

মার্চ

৩২.০৬

২০.০৭

এপ্রিল

৩৩.০৩

২৪.০৪

মে

৩১.০৫

২৪.০৬

জুন

৩২.০৭

২৬.০১

জুলাই

৩২.০২

২৫.০৯

আগাষ্ট

৩১.০৪

২৫.০৬

সেপ্টেম্বর

৩২.০০

২৫.০৫

অক্টোবর

৩১.০৪

২৪.০২

নভেম্বর

৩১.০৬

১৯.০২

ডিসেম্বর

২৭.০৪

১৪.০৬

 


 

১.৪.৪   অন্যান্য

 

ভূমি ও ভূমির ব্যবহারঃ

 

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

মোট জমির পরিমাণ

আবাদী

অনাবাদী

এক ফসলী

দুই ফসলী

তিন ফসলী

চার ফসলী

বসতি এলাকার কত অংশী

মীরেরস্বরাই

৪৪৫৬৭ হেক্টর

২৫৯১১ হেক্টর

-

৭১২৫ হেক্টর

১৪১৭০

হেক্টর

৪২১০ হেক্টর

 

 

সন্দ্বীপ

১৮৮৩৯৮ একর

৫৬৫৩০ একর

২২৯১১ একর

 

 

 

-

 

বাশখালী

২৩,৮৩৪ হেক্টর

৩৯,১০৩ হেক্টর

 

৩,০১৫ হেক্টর

৪৩৬৭ হেক্টর

৯১১৮ হেক্টর

-

 

বোয়ালখালী

 

১৬,৯২০একর

 

৩,৫৩২.৪০একর

১২,১৫২.৪০একর

১,১৩৬.২০একর

-

 

আনোয়ারা

 

২০৯২২একর

১৯৫০একর

৪৩১১একর

৯৮৬৪একর

৬৭৪৭একর

-

 

সাতকানিয়া

১৫৫৬৩     হেক্টর

১৩৬৫৬.৬৬ হেক্টর

 

২৬৪৯.৭৯

সাতকানিয়া

১৫৫৬৩     হেক্টর

 

 

হাটহাজারী

২৫,৫০৬ হেক্টর

১৭,৬৬৫ হেক্টর

 

৪,৪৮০ হেক্টর

 

হাটহাজারী

২৫,৫০৬ হেক্টর

 

ফটিক ছড়ি

৩৬,৬৪০ হেক্টর।

২৪,৯৫০ হেক্টর।

২৮৬ হেক্টর

১৫,১৮৫ হেক্টর

৮,৫৭৬ হেক্টর

১১৯০ হেক্টর

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

১০

 

 

 

 

 

 

 

 

 

১১

 

 

 

 

 

 

 

 

 

১২

 

 

 

 

 

 

 

 

 

১৩

 

 

 

 

 

 

 

 

 

১৪

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মোট

 

 

 

 

 

 

 

 

 

ভূমির ব্যবহারঃ

 

০১

এক ফসলী জমি

৬০,৬৪৪ হেক্টর

০৭

চাষযোগ্য পতিত জমি

১৫,২১৩ হেক্টর

০২

দু’ ফসলী জমি

১,১৭,৬৫৪ হেক্টর

০৮

স্থায়ী পতিত/অনাবদী

১৮,১৩৩ হেক্টর

০৩

তিন ফসলী জমি

৩০,৭৭২ হেক্টর

০৯

লবনাক্ত জমি

১০,০০০ হেক্টর

০৪

তিন এর অধিক  ফসলী জমি

৫০ হেক্টর

১০

উপকূলীয় এলাকা

২৯,৯৮০ হেক্টর

০৫

মোট প্রকৃত আবাদী জমি/নীট ফসলী জমি

২,০৯,১২০ হেক্টর

 

 

 

০৬

মোট ফসলী জমি

৩,৮৮,৪৬৮ হেক্টর

 

 

 

 

কৃষি ও খাদ্যঃ

 

ক্রমিক নং

প্রধান ফসল

উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা

(মেঃটন)

উৎপাদনের পরিমাণ

(মেঃটন)

ক্ষয়ক্ষতির তথ্য

প্রধান খাদ্যসমূহ

খাদ্যাভাস

০১

রোপা আমন

৩৯৪৩১২

৪১৪৭৯২

 

 

 

০২

বোরো হাইব্রিড

৩৮০৬০

 

 

 

 

০৩

আউশ

 

 

 

 

 

০৪

গম

১৪

৬.১

 

 

 

০৫

ভহট্টা

৭২

৪৯

 

 

 

০৬

আলু

৮০০১০

৫৮০২৯

 

 

 

০৭

মিষ্টি আলু

২২২৭৯

৩৩৭৭০

 

 

 

০৮

আখ

১৭৬১৬

১৯৬৫৬

 

 

 

০৯

মুসর

৪৫৫

১৮৫

 

 

 

১০

খেসারী

২৬০৯

৩০২৭

 

 

 

১১

ছোলা

৬.৯৫

 

 

 

১২

মুগ (শীত)

৩০২২

২৪৮৪

 

 

 

১৩

মটর

২৫

৪২.৬২

 

 

 

১৪

ফেলন

১০২৬১

১০৩৫৩.৮

 

 

 

১৫

মাসকলাই

৮৩

৬৪

 

 

 

১৬

অড়হর

৭.৭৪

 

 

 

১৭

সরিষা

৩৬৮

৩১৯

 

 

 

১৮

তিল (গ্রীষ্ম)

২০

১৯.১

 

 

 

১৯

চিনাবাদাম (শীথ)

১৬৭৯

১৪৯৮

 

 

 

২০

পেয়াজ

৫৮৩

৩৭০

 

 

 

২১

রসুন

১২৪

১১৮

 

 

 

২২

আদা

৫৩৭০

১১২৩৫

 

 

 

২৩

হলুদ (শুকনো)

৮৭২

১৭৭১

 

 

 

২৪

মরিচ(শীথ)

৫৭৬৪

৫৬৩০

 

 

 

২৫

মরিচ (গ্রীষ্ম)

৭৮

৯০

 

 

 

২৬

ধনিয়া

২০

৭৪১

 

 

 

২৭

শীথকালীণ সবজি

৩১০৬৮১

৩৬১৬১৬

 

 

 

২৮

গ্রীষ্মকালীণ সবজি

৮৫৭৭৮

১২২৫১৫

 

 

 

২৯

মুগ (গ্রীষমকালীন)

 

 

 

 

বিগত ১২/০৮/২০১৪ হতে ১৭/০৮/২০১৪ ইং অদ্যবদি অতিবৃষ্টির ফলে সৃষ্ট জলাবদ্ধতায় নিমজ্জিত ফসলের প্রাথমিক প্রতিবেদনঃ

 

ক্রঃ নং

উপজেলা / মেট্রোপলিটনের নাম

মাঠে দন্ডায়মান ফসল (হেঃ)

নিমজ্জিত ফসল (হেঃ)

সন্তব্য

আউশ

রোপা আমন বীজতলা

এ যাবৎ রোপা আমন আবাদ

শরৎকালীন শাক-সব্জি

আউশ

রোপা আমন বীজতলা

রোপা আমন

শরৎকালীন শাক-সব্জি

আনোয়ারা

৩১২০

৫০০

১০

সন্দ্বীপ উপজেলার উত্তর ‍দিকের কাল ‍দিয়ে জোয়ারের পানি ঢুকে উপজেলার ৬টি ইউনিয়ন (কালাপানিয়া, হরিশপুর, গাছুয়া, সন্তোষপুর, মূসাপুর, রহমতপুর) এর ১৬০০ হেঃ ফসলী জমি নিমজ্জিত হয়েছে। বৃষ্টিপাত কমে গেলে ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ নিরুপন পূর্বক যথা সময়ে প্রতিবেদন দাখিল করা হবে।

বাঁশখালী

৪৫৭৮

৬৫৫

৩৪১০

২১

১৫০

বোয়ালখালী

৫০

১৪১

৩০৭৫

৫০

১৫০০

চন্দনাইশ

২৭৫০

৩৫০

১৬০০

৩০০

১০০

৩০

ডবলমুরিং

১১

১৫১০

২০০

ফটিকছড়ি

২৫৪

৩৮৫

১৮৯০০

৫৫

২১৫০

হাটহাজারী

৪০

৫০০

৩৫০০

২৫

৫০

লোহাগাড়া

৬৯০

১৭৫

৭৫০০

৪৮০

৫০০

১৫

মিরশ্বরাই

৭৬০০

৮২৭

৩৮৫০

১৫০

২২০০

১০

পাঁচলাইশ

১০৬

৪০০

৫২

৫০

১১

পটিয়া

৪৫০০

১৫০

৪২৫০

৮০

২০০

১২

রাংগুনীয়া

৩০

১৯৪

১২৩০০

১০০

১৩

রাউজান

৩০

৩২০

৭৭২০

১৯০

৮০০

৫০

১৪

সন্দ্বীপ

৯৮০০

৮০০

৬০০০

৫০

১৬০০

১৫

সাতকানিয়া

১২৫০

৫৩০

৪৪০০

২৫০

১০০

২০

১৬

সীতাকুন্ড

৮০৫৮

৩৫৬

৩৭৫

৪০০

১০

 

মোট

৪২৭৫০

৬০০

৭৮৭৯০

২২১৮

৯৬১০

১১৫

 

বিঃদ্রঃ ১২/০৮/২০১৪ হতে ১৭/০৮/২০১৪ ইং পযর্ন্ত অতিবৃষ্টি, সামদ্রিক জোয়ার ও পাহাড়ী ঢলে সৃষ্ট জলাবদ্ধতার কারণে ফসলী জমি নিমজ্জিত হয়েছে।

সূত্রঃ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, চট্টগ্রাম

 

নদীঃ ছোট বড় এবং শাখা নদী মিলিয়ে ১৪টি উপজেলা ঘিরে ১৪টি নদীর কথা বলা হয়েছে।

 

কর্নফুলীঃকর্নফুলী নদীটি রাউজান, রাঙ্গুঁনিয়া, বোয়ালখালী পটিয়া ও চট্টগ্রাম মহানগর নিয়ে বেষ্টিত। কর্নফুলী ও শাখা নদী হালদার উপর ৭০% মৎসজীবি ও জেলে নির্ভরশীল। হালদার পানি মিষ্টি বিধায় ইহা সবচেয়ে বড় মৎস প্রজনন ক্ষেত্র। এই নদী জাতীয় মাছের জন্য বেশ উপকারী।

 

হালদা নদীঃহাটহাজারী, রাউজান, ফটিকছড়ি এবং বোয়ালখালী উপজেলার কিছুটা অংশ নিয়ে হালদা নদী বেষ্টিত। মৎস প্রজননের জন্য উপযুক্ত স্থান এই নদী।

 

শংখ নদীঃবাশঁখালী, আনোয়ারা, চন্দনাইশ এবং সাতকানিয়ার কিছু অংশ নিয়ে শংখ নদী বিস্তৃত। বর্ষা কালে এই নদীর পানি ভাল থাকে কিন্তু শীতকালে লবনাক্ত হয়।

 

সাঙ্গু নদীঃসাতকানিয়ার, চন্দনাইশ এবং বাশঁখালী কিছু অংশ নিয়ে এই নদী বিস্তৃত।

 

ছিকলবাহা নদীঃ আনোয়ারা, পটিয়া এবং চন্দনাইশ এর অংশ বিশেষ এলাকা নিয়ে ছিকলবাহা নদী প্রবাহিত হয়েয়ে। এই নদীর পানি বর্ষা কালে মিষ্টি হয় এবং শীতকালে লবনাক্ত থাকে।

 

 

পুকুর

 

উপজেলা / সিটি কর্পোরেশন

পুকুর

দিঘী

খাল

বন্যা আশ্রয় কেন্দ্র

সাইক্লোন সেন্টার

স্টেডিয়াম / খেলার মাঠ

পার্ক / বিনোদন পার্ক

আনোয়ারা 

৬৫০০

১২

৫২

৫২

১৬

বাশখালী

৩২০০

১৯

১১৭

১৩

বোয়ালখালী 

৪৮৩৮

১০

চন্দনাইশ

৩৫৭০

২৪

৪২

চট্টগ্রাম মহানগরী

২৩৪

১৩

১৬

৩৭

৫৯

১১

ফটিক ছড়ি

৪০৩০

৩৫৩

হাটহাজারী

৭৭০৮

৮৫০

১৮৭

লোহাগাড়া

২৫৭৮

৪১

২৫৩

মীরেরস্বরাই  

১৩৬১০

১০

৭৪

২১

পটিয়া

৫১৮

৪৫

১২

রাংগুনিয়া

৩৪৫০

১১০

রাউজান

৪৩৭০

৪৩

সন্দ্বীপ  

১০৩৩৯

২৭০

১২

সাতকানিয়া

৫১৮৬

১৮

১০২

সীতাকুন্ড

৪২০৮

১৮

৫৯

৩১

মোট

৭৩৮৮৪

১৫৬৬

২১

৩৩৮

৩৭৮

৭৩৮

২০

 

খালঃ

 

প্রতিটি খাল সকল উপজেলা ঘিরে প্রবাহিত হয়েছে। কৃষি কাজের জন্য সেচ ব্যবহার, মাছ সংগ্রহ এবং বন্যার পানি দ্রুত নেমে যাওয়ার ক্ষেত্রে এই খালযথেষ্ট উপকার করে থাকে। খাল উপকার বইকি অপকার করে না। খাল ভরাট হলে সেচ কৃষি কাজের জন্য পানির অভার হবেএবং ফসলের ক্ষতি হবে।

 

বিলঃ

 

চট্টগ্রাম জেলায় ১০টি বিল আছে। প্রতিটি বিল ব্যবহিৃত হচ্ছে। মৎস ও ধান চাষ করা হচ্ছে। ফলে এই বিলের দ্বারা এলাকার মানুষের অনেক উপকার হচ্ছে।

 

হাওড়ঃ

 

জেলায় ১টি হাওর আছে, সেটা ব্যবহার হচ্ছে মৎস চাষের ক্ষেত্রে। যার ফলে এলাকার মানুষের মাছের চাহিদা পূরণ সম্ভব হচ্ছে।

 

আর্সেনিকঃ

 

আর্সেনিক দূষণঃ আর্সেনিক দূষণ আছে তবে সব উপজেলায় নেই। মীরেরস্বরাই  উপজেলায় অগভীর নলকুপে ৫০% এবং সীতাকুন্ড উপজেলায় ৪০% নলকুপে আর্সেনিক পাওয়া গেছে।

 

মীরেরশ্বরাই উপজেলায় আর্সেনিক দূষন এর মাএা সর্বোচ্চ ০.৫ মিলি গ্রাম প্রতি লিটার। ৪০% টিউবওয়েলে আর্সেনিক দূষন আছে। এই উপজেলায় পানির স্থর গড়ে ১২ফুট নীচে।  সীতাকুন্ড উপজেলায়  আর্সেনিক দূষন এর মাএা সর্বোচ্চ ১৫০ পিপিবি এবং সর্বোনিম্ন ১৫ থেকে ৩০ পিপিবি । শুস্কমৌসুমে পানির স্থর ২০ ফুট নীচে থাকে। ভূগর্ভস্থ পানির স্থর বারো মাসেই পরিবর্তন হয়ে থাকে। এমনেতেই খাবার পানি ও সেচের পানির সংকট থাকে তার উপর শুস্ক মৌসুমে খাবার পানির এবং সেচের পানির তীব্র সংকট দেখা দেয় । শতকরা ২৫ ভাগ টিউবওয়েলে আর্সেনিক আছে । বোয়ালখালী উপজেলায় গ্রহন যোগ্যমাএা আর্সেনিক আছে .০০২৫ মি.জি. লাইট। টিউবওয়েলে ০.৫% আর্সেনিক আছে।

সংযুক্তি